Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য

অফিসের ঠিকানাঃ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, বাংলা স্কুল মোড়, ভোলা সদর, ভোলা। ফোনঃ ০৪৯১-৬১৪৪৯

 

ভোলা জেলায় খাদ্য বিভাগের মোট ০৮ টি এলএসডি/খাদ্য গুদাম রয়েছে। উক্ত ০৮ টি গুদামের খাদ্যশস্য ধারণক্ষমতা ১৫,২৫০ মেঃটন। খাদ্য গুদামগুলো হলো-ভোলা সদর এলএসডি, দৌলতখান এলএসডি, বোরহানউদ্দিন এলএসডি, তজুমদ্দিন এলএসডি, লালমোহন এলএসডি, চরফ্যাশন এলএসডি, চরশশীভূষণ এলএসডি  মনপুরা এলএসডি।

 

ভোলা জেলায় ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ভিজিডি, ভিজিএফ, জিআর, বাংলাদেশ পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, আনসার, কারাবন্দী, খোলা বাজারে ওএমএস কার্যক্রমের আওতায় সুলভমূল্যে চাল ও আটা বিক্রি, ভিজিএফ মৎস্য, গুচ্ছগ্রাম ইত্যাদি কর্মসূচিতে মোট ৪২,৭৭৫ মেঃটন চাল ও ৪,১৭০ মেঃটন গম বিলি-বিতরন করা হয়েছে।

 

ভোলা জেলা শহরের ০৯ টি বিভিন্ন পয়েন্টে ০৯ জন ওএমএস দোকান ডিলারের মাধ্যমে সুলভমূল্যে মাথাপিছু ০৫ কেজি করে দৈনিক মোট ০৯ মেঃটন করে চাল/আটা বিক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। জেলার প্রত্যেকটি উপজেলায় ০৫ জন করে ওএমএস ডিলারের মাধ্যমে সুলভমূল্যে চাল বিক্রি কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

 

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি: দেশের অতিদরিদ্র জনসাধারণের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য বর্তমান সরকার শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ স্লোগানকে সামনে রেখে ইউনিয়ন পর্যায়ে বছরে ০৫ মাস (সেপ্টেম্বর, অক্টোবর, নভেম্বর, মার্চ, এপ্রিল) প্রতিকেজি ১০ টাকা দরে পরিবার প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চাল সরবরাহ কার্যক্রম শুরু করেছে, যা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি নামে পরিচিত। এ কর্মসূচির আওতায় বান্দরবান জেলার ০৭ টি উপজেলার ৮২,৯৯৯ টি অতিদরিদ্র পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। 

 

রুলস অব বিজনেস, ১৯৯৬ (সংশোধিত ২০০৯) অনুসারে খাদ্য অধিদপ্তরের কার্যাবলী নিম্নরুপঃ

১। জরুরী গ্রাহকদের খাদ্যদ্রব্য ও অত্যাবশ্যকীয় দ্রব্যাদি সরবরাহ করা (খাদ্যশস্য আমদানী, রেশন)

২। আপৎকালীন মজুদ গড়ে তোলা (নিরাপত্তা মজুদ);

৩। খাদ্যশস্য উৎপাদনে স্বয়ম্ভরতা অর্জনে সহায়তা করা (অভ্যন্তরীণ সংগ্রহ);

৪। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী সম্প্রসারণ করা (ভিজিডি, ভিজিএফ, কাবিখা ও টিআর);

৫। মূল্য স্থিতিশীলতা অর্জন করা (ওএমএস);

৬। কার্যকর ও নির্ভরযোগ্য খাদ্য সংগ্রহ, সরবরাহ এবং বিতরণ ব্যবস্থাপনা;

৭। কৃষক এবং ভোক্তা-বান্ধব খাদ্য মূল্য কাঠামো অর্জন;

৮। কার্যকর ও যুযোপযোগী খাদ্য বিতরণ ব্যবস্থা/পদ্ধতি প্রবর্তন;

৯। খরা ও দুর্ভিক্ষ এবং খাদ্য সংকট পরিস্থিতি মোকাবেলার সফল ব্যবস্থাপনা;

১০। দরিদ্র ও সামাজিকভাবে বঞ্চিত জনগনকে খাদ্য সংগ্রহ সহায়তা প্রদান;

১১। খাদ্য নিরাপত্তা নীতিকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা/ত্রাণ বিতরণ ব্যবস্থাপনার সাথে সমন্বিত করন;

১২। লক্ষ্যভিত্তিক খাতে জনসাধারণের কাজে খাদ্যশস্য যথাসময়ে পৌছানো।

১৩। পেশাদারী, সক্ষম এবং দক্ষ কর্মীবাহিনী গড়ে তোলা;

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)